1. [email protected] : anjuman : anjuman
  2. [email protected] : শেয়ারবার্তা প্রতিবেদক : শেয়ারবার্তা প্রতিবেদক
  3. [email protected] : শেয়ারবার্তা : nayan শেয়ারবার্তা
বাংলাদেশ জাপানে সাহায্য বা ঋণের জন্য আসেনি
সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০৭:০৪ পিএম

বাংলাদেশ জাপানে সাহায্য বা ঋণের জন্য আসেনি

  • আপডেট সময় : শনিবার, ২৯ এপ্রিল, ২০২৩
bsec chairman-

বাংলাদেশ জাপানে সাহায্য বা ঋণের জন্য আসেনি। এখানে এসেছে বিনিয়োগের প্রস্তাব নিয়ে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের চেয়ারম্যান প্রফেসর শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম। তিনি বলেন, আমাদের শেয়ারবাজারে এখানে বিনিয়োগ করলে সহজেই মুনাফা পাবেন।

গতকাল বৃহস্পতিবার জাপানের রাজধানী টোকিওতে অনুষ্ঠিত বিনিয়োগ সম্মেলন দ্যা রাইজ অব বেঙ্গল টাইগার: ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট অপরচুনিটিজ বিটুইন বাংলাদেশ অ্যান্ড জাপানে উপস্থাপিত মূল প্রবন্ধে তিনি এসব কথা বলেন। এই সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন জাপানের অর্থনীতি, বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রী নাকাতানি শিনিছি। বিএসইসি ও বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা) যৌথভাবে এই সম্মেলনের আয়োজন করে।

সম্মেলনের সহ-আয়োজক জাপান এক্সটার্নাল ট্রেড অর্গানাইজেশন (জেট্রো) এবং জাপান-বাংলাদেশ কাউন্সিল কমিটি ফর কমার্শিয়াল অ্যান্ড ইকোনমিক কো-অপারেশন (জেবিসিসিইসি)। সম্মেলনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জাপান চেম্বার অব কমার্সের (জেসিসিআই) প্রেসিডেন্ট কোবায়াশি কেন, জাপানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শাহাবুদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ইওয়ামা কিমিনরি এবং জেট্রোর প্রেসিডেন্ট ইশিগুরো নরিহিকো।

বাংলাদেশের শেয়ারবাজারে বিশ্বের বেশিভাগ দেশের চেয়ে অস্থিরতা অনেক কম জানিয়ে শিবলী রুবাইয়াত বলেন, বাংলাদেশ জাপানে সাহায্য বা ঋণের জন্য আসেনি। এসেছে বিনিয়োগের জন্য। আরও বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতির ধারাবাহিক প্রবৃদ্ধির রেকর্ড রয়েছে। কয়েক বছরের মধ্যে বাংলাদেশ একটি ট্রিলিয়ন ডলারের অর্থনীতিতে উন্নীত হবে। এই অর্থনীতির রয়েছে যে কোনো সংকট মোকাবেলার সক্ষমতা। এই দেশে বিনিয়োগ করলে সহজেই মুনাফা পাবেন। এখানে সরকারের বিশেষ মনিটরিং রয়েছে। বিদেশী বিনিয়োগকারীদের দেওয়া হয় আর্থিক ও নীতিগত প্রণোদনা। সম্প্রতি আন্তর্জাতিক এক গবেষণা রিপোর্টে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের ব্র্যান্ড ভ্যালু ৩৭ শতাংশ বেড়েছে। তৈরি পোশাকসহ বেশকিছু খাতে অভাবনীয় অগ্রগতি হয়েছে। বিশ্বের শীর্ষ ১০টি পরিবেশসম্মত পোশাক কারখানার ৭টিই বাংলাদেশে অবস্থিত।

আরও বলেন, বিনিয়োগের সম্ভাবনার দিক থেকে এখন বাংলাদেশ ভারত, ভিয়েতনাম, কম্বোডিয়াসহ অনেক দেশের চেয়ে এগিয়ে। জাপানি বিনিয়োগকারীদের উচিত এখানে বিনিয়োগের সুযোগকে কাজে লাগানো।

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান:

ভালো লাগলে শেয়ার করবেন...

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ