1. [email protected] : anjuman : anjuman
  2. [email protected] : শেয়ারবার্তা প্রতিবেদক : শেয়ারবার্তা প্রতিবেদক
  3. [email protected] : শেয়ারবার্তা : nayan শেয়ারবার্তা
শাস্তির কবলে শেয়ারবাজারের তিন ব্যাংক
শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ০৭:০৪ পিএম

শাস্তির কবলে শেয়ারবাজারের তিন ব্যাংক

  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ৯ মে, ২০২৩

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত তিনটি ব্যাংক অতিরিক্ত করের শাস্তির কবলে পড়তে যাচ্ছে। এই তিন ব্যাংক ২০২২ সমাপ্ত অর্থবছর শেষে শুধুমাত্র স্টক ডিভিডেন্ড দেওয়ার কারণে এই শাস্তির কবলে পড়তে যাচ্ছে। এই তিন ব্যাংকের মধ্যে রয়েছে মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক ,এবি ব্যাংক ও ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামি ব্যাংক লিমিটেড।

২০১৮-১৯ অর্থবছরের অনুমোদিত বাজেট অনুযায়ি, শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত কোনো কোম্পানি কোনো অর্থবছরে ক্যাশ ডিভিডেন্ডের বেশি স্টক ডিভিডেন্ড দিতে পারবে না। অর্থাৎ স্টক ডিভিডেন্ড সর্বোচ্চ ক্যাশ ডিভিডেন্ডের সমান হতে পারবে। যদি কোনো কোম্পানি স্টক বেশি দেয়, তাহলে ওই স্টকের উপর ১০ শতাংশ হারে কর আরোপ করা হবে। সেই হিসাবে এই তিন ব্যাংক অতিরিক্ত কর দিতে হবে।

এবি ব্যাংক : ব্যাংকটি শুধুমাত্র স্টক ঘোষণার কারনে ১৭ কোটি ২২ লাখ টাকার স্টকের উপর ১০ শতাংশ হারে ১ কোটি ৭২ লাখ টাকার অতিরিক্ত কর দিতে হবে। এছাড়া মুনাফার ৩০ শতাংশের কম ডিভিডেন্ড ঘোষনা করায় ৫৪ কোটি ২৪ লাখ টাকার উপর ১০ শতাংশ হারে আরও ৫ কোটি ৪২ লাখ টাকার অতিরিক্ত কর দিতে হবে।

এবি ব্যাংকের ২০২২ সালের ব্যবসায় শেয়ারপ্রতি ০.৮৩ টাকা হিসেবে ৭১ কোটি ৪৬ লাখ টাকার নিট মুনাফা হয়েছে। এরমধ্যে থেকে ২% স্টক বাবদ ১৭ কোটি ২২ লাখ টাকা দিয়ে পরিশোধিত মূলধন বাড়ানো হবে। মুনাফার বাকি ৫৪ কোটি ২৪ লাখ টাকা বা ৭৬% রিটেইন আর্নিংসে যোগ হবে।

মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক : মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক ৮ কোটি ৯৪ লাখ টাকার অতিরিক্ত আয়কর প্রদানের শাস্তির আওতায় পড়তে হচ্ছে। ব্যাংকটির পর্ষদ শুধুমাত্র স্টক ডিভিডেন্ড ঘোষণা করায় ৮৯ কোটি ৩৭ লাখ টাকার উপরে ১০ শতাংশ হারে ৮ কোটি ৯৪ লাখ টাকার অতিরিক্ত কর দিতে হবে।

২০২২ সালে শেয়ারপ্রতি ২.৬৫ টাকা করে ২৩৬ কোটি ৮৪ লাখ টাকার নিট মুনাফা হয়েছে। এরমধ্য থেকে ১০ শতাংশ স্টক শেয়ার হিসাবে ৮৯ কোটি ৩৭ লাখ টাকা দিয়ে পরিশোধিত মূলধন বাড়ানো হবে। মুনাফার বাকি ১৪৭ কোটি ৪৭ লাখ টাকা বা ৬২ শতাংশ আয় রাখা হবে।

ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামি ব্যাংক : ফার্স্ট সিকিউরিটি ব্যাংকটির পর্ষদ শুধুমাত্র স্টক ডিভিডেন্ড ঘোষণা করায় অতিরিক্ত আয়কর প্রদানের শাস্তির আওতায় পড়তে হচ্ছে।১০৪ কোটি ৬০ লাখ টাকার উপরে ১০% হারে ১০ কোটি ৪৬ লাখ টাকার অতিরিক্ত কর দিতে হবে।

২০২২ সালে শেয়ারপ্রতি ২.৮১ টাকা করে ২৯৩ কোটি ৯৩ লাখ টাকার নিট মুনাফা হয়েছে। এরমধ্য থেকে ১০ শতাংশ স্টক শেয়ার হিসাবে ১০৪ কোটি ৬০ লাখ টাকা দিয়ে পরিশোধিত মূলধন বাড়ানো হবে। বাকি ১৮৯ কোটি ৩৩ লাখ টাকা বা ৬৪ শতাংশ রিটেইন আয় রাখা হবে।

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান:

ভালো লাগলে শেয়ার করবেন...

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ